Life Style

অনলাইনে ঘরে বসে আয় করার টিপস ২০২০

আপনি যদি অনলাইনে একজন নিয়মিত ব্যবহারকারী হয়ে থাকেন,তাহলে ঘরে বসে সময় নষ্ট না করে সেই সময় বা মেধা টুকু আপনি চাইলে আপনার পকেট খরচ বা আপনার বর্তমান সময় টি চেঞ্জ করে নিতে পারেন খুব সহজেই,কিন্তু অনলাইনে আয় সে মরীচিকার মত কঠিন তবে আজকের এই পোষ্টে আপনাকে কিছু সহজ মাধ্যম নিয়ে আলোচনা করতে চাচ্ছি।কারন আপনার কাছে হাতে থাকা স্মার্টফোনটি বা পিসি টি হতে পারে আপনার আয়ের মাধ্যম,কারন আপনি হয়তো দেখে থাকবেন আপনার বাড়ীর পাশেই কেউ অনলাইনে ফ্রিল্যান্সিং করে আয় করে নিজের জীবন কে পালটে দিয়েছে।আর আপনি যদি কারো অধীনে কাজ না করে নিজ স্বাধীনতায় কাজ করতে চান তো তাহলে ফ্রিল্যান্সিং এর মাধ্যমে আয়ের বিকল্প নেই।তাই হা-হুতাশ না করে এখান থেকে জেনে নিতে পারেন পারবেন ফ্রিল্যান্সিং করে আয়ের কিছু পয়েন্ট।
অনলাইনে ঘরে বসে আয় করার টিপস ২০২০

#অনলাইনে ঘরে বসে আয় করার টিপস ২০২০

১ । পিটিসি সাইট থেকে আয় করুনঃ আপনি যদি অনলাইনে ঝামেলা ছাড়া কাজ করে আয় করতে চান তাহলে আপনার জন্য পিটিসি সাইটের কোন বিকল্প নেই, এই ধরুন ১০০ ডলার এর মত বা এর বেশি বা কম আর্ন করতে চান তাহলে পিটিসি সাইট গুলোই হতে পারে স্বর্বোত্তম। পিটিসি (PTC) মানে হল (Paid To Click) পেইড টু ক্লিক। মানে আপনি এসব সাইটের এডস এ যত গুলো ক্লিক করবেন এবং তার বিপরীতে আপনি কিছু নির্দিষ্ট পরিমান ডলার পাবেন।অনেক সময় পিটিসি সাইটে আপনাকে বিজ্ঞাপন দেখতে দিবে,এবং ১০ থেকে ৩০ সেকেন্ডের জন্য এড দেখতে হবে।আপ্নার দেখা প্রতিটি বিজ্ঞাপন এর ভিত্তিতে এসব সাইট আপনাকে টাকা দিবে,
বর্তমানে প্রচুর ফ্রি পিটিসি ওয়েব সাইট আছে যাতে আপনি বিনামূল্যে নিবন্ধন করতে পারেন।এসব সাইটে আপনি কোন ইনভেষ্টমেন্ট ছাড়াই আর্ন করতে পারেন আবার আপনি চাইলে রেফারেল করে ডাবল ইনকাম করতে পারবেন।এবং কিছু প্যাকেজ কিনেও পিটিসির আর্ন লেভেল বাড়াতে পারবেন।

২ । ক্যাপচা সল্ভ করে আয়ঃ আপনি চাইলে ক্যাপচা পূরন করেও সহজ ভাবে আয় করতে পারেন।আপ্নার হাতে যদি বেশি সময় থাকে তাহলে ক্যাপচা সলভার(captcha solver) হিসাবে আপনি অনলাইনে আরো বেশি আয় করে নিতে পারবেন,কারন ক্যাপচা সল্ভার আয় উপার্জনের মধ্যে অন্যতম একটি।
একজন ক্যাপচা সল্ভার হিসাবে আপনাকে ইমেজ বুঝতে হবে,সঠিক অক্ষর বা চিহ্ন বুঝতে হবে এবং ভালো আয়ের জন্য আপনাকে দ্রুত টাইপিং শিখতে হবে।

এর জন্য আপনি যদি ক্যাপচা সমাধান করে আয় করার জন্য আগ্রহী হন তবে আপনি Kolotibablo, MegaTypers, CaptchaTypers, ProTypers, Captcha2Cash, 2Captcha, Qlinkgroup, VirtualBee, FastTypers, PixProfit, এই ট্রাষ্টেড ক্যাপচা সাইট গুলোতে আজই সাইনআপ করে আপনার কাজ শুরু করতে পারেন।
এতে আপনি ১০০০ ক্যাপচা পূরনে ২ ডলার করে আর্নিং পাবেন।

৩ । ব্লগিং থেকে আয়ঃ বর্তমানে ঘরে বসে আপনি চাইলে ব্লগ সাইট গুলিতে লেখা লেখি করে আয় করে নিতে পারেন,মূলত আপনার মেধা যে বিষয়ে বিজ্ঞ সেই বিষয়ের উপর কন্টেন্ট লিখে মাসে প্রচুর টাকা আয় করতে পারেন, আর্টিকেল গুলো প্রতিটা ৫০০ কিংবা ৮০০ এর মধ্যে রাখলে আপনি আপনার খুব সহজেই আর্নিং এর উৎস পেয়ে যাবেন।
যেহেতু ব্লগ গুগলের নিজস্ব একটি সার্ভিস তাই এর জন্য কোন টাকার দরকার হয় না তাছাড়া গুগল এ সার্চ করে প্রচুর প্রিমিয়াম টেমপ্লেট পেয়ে যাবেন।
এবং এর জন্য কোন কোডিং এর ও দরকার হয় না,তাই খরচ নেই বললেই চলে এবং এতে কোন হোষ্টিং এর দরকার হয় না, এবং এতে আপনার ব্যক্তিগত সার্ভিস খুব সহজেই প্রোমোশন করতে পারেন।

এডসেন্স কিংবা এড নেটওয়ার্ক নিয়ে কাজ করেঃ এডসেন্স মূলত গুগলের বিশ্বের সব চেয়ে বড় এডভারটাইজমেন্ট প্রোগ্রাম,এবং এটি স্বয়ং গুগল নিজেরাই পরিচালনা করছে,আপনি যদি ভালো মানের ব্লগ আর্টিকেল প্লাটফর্ম তৈরী করতে পারেন তাহলে মাস শেষে হাজার থেকে লক্ষ টাকা পর্যন্ত নিয়ে যেতে পারবেন।এ পদ্ধতিতে আপনার ব্লগে যদি প্রচুর ভিজিটর থেকে থাকে তাহলে হাজার হাজার টাকা আপনার জন্যই।
অনলাইনে আপনি এভাবে সহজ ভাবে কাজ করতে পারলে সফলতা পাবেন।যদিও প্রথম দিকে প্রায় ২,৩ মাস আপনাকে কষ্ট করতে হবে আপনার সাইটের একটি ভালো পজিশনে নিয়ে গিয়ে ভালো আর্নিং এর জন্য।
এছাড়া আপনি চাইলে ব্লগে বা ওয়ার্ডপ্রেস এ এড নেটওয়ার্কের এডস বসিয়ে য়ায় করতে পারবেন এবং ১০০ ডলার হলে আপনি উইথড্র করতে পারবেন।
এডসেন্স বা এড নেটওয়ার্কের এড গুলি আপনার ব্লগ বা ওয়ার্ডপ্রেস এর সাইট টি তে ভালো মানের আর্নিং পাবেন।
তাই আপনাকে অবশ্যই একটি ব্লগার বা ওয়েবসাইট থাকতে হবে এবং ইউনিক আর্টিকেল লিখার বিষয় নিয়ে কাজ করতে পারেন।

ডিজিটাল মার্কেটিং ঃ নতুন যারা অনলাইন দুনিয়া তে কাজ করতে চাচ্ছেন তাদের জন্য ডিজিটাল মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে ফ্রিল্যান্সারদের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে।নিজের প্রতিষ্ঠান কে কম খরচে বাজারে তুলে ধরতে ওয়েব প্লাটফর্ম করে অনেক বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে এসব প্রতিষ্ঠান।
সাধারনত সোস্যালফ মাধ্যম থেকে শুরু করে ওয়েব পোর্টালের প্লাটফর্মে প্রতিষ্ঠান কে তুলে ধরতে ফ্রিল্যান্সাদের দিকেই বেশী ঝোঁক দিচ্ছে কর্মীরা।এ খাতে অবশ্যই অনেক ভালো আয় করতে পারবেন।

ফ্রিল্যান্সিং করেঃ বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং হলো সব থেকে জনপ্রিয় আয়ের উৎস ,এর কারন হিসাবে কারো উপর ডিপেন্ড না করে কাজ করতে পারেন।এতে নিজের সময় কে গুরুত্ব দিন,কারন এক জন ফ্রিল্যান্সার হিসাবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে হলে নিজেকে রিপ্রেজেন্ট করা জন্য পরিশ্রম টার সাথে পারশ্রমিক ও বেশি।আপনি যে কাজ পারেন তাই করার সুযোগ খুজবেন, এবং মন দিয়ে কাজের দিকে নজর দিবেন এতে আপনার উপর যেমন আপনার ক্ল্যায়েন্টের আস্থা বাড়বে তেমনি আপনার আয়ের পরিমান এবং র‍্যাকিং তথা আপনার রেটিং বাড়বে। এতে আপনি যখন কাজের জন্য বিড করবেন বায়ার রা আপনার প্রোফাইল চেক করে আপনাকে কাজ দিতে পারবে।

Also Read: একজন সফল Freelancer হিসাবে

কন্টেন্ট রাইটিং বা আর্টিকেল রাইটিং করেঃ ইন্টারনেটে অর্থ উপার্জনের আরেকটি উপায় হলো বিভিন্ন ওয়েব বা ব্লগ পোর্টালে কন্টেন্ট লেখা।আপনি যেকোন প্রতিষ্ঠান এর পন্য রিভিউ,ব্যক্তি,বা সার্ভিসের উপর আর্টিকেল রাইট করতে পারেন।
বিভিন্ন বিষয়ে লেখার উপর ভিত্তি করে কন্টেন্ট রাইটার রা বিভিন্ন পারিশ্রামিক পেয়ে থাকেন।
যেমন কিছু কন্টেন্ট আছে যেগুলো ৫০০ শব্দের মধ্যে লিখে প্রায় ৫,৬ ডলার বা তার থেকেও বেশি উপার্জন সম্ভব।

কপি পেষ্ট বা রি-রাইট করেঃ আপনি যদি একটু শৌখিন ভাবে কাজ করতে চান তাহলে রি-রাইট বা কপি পেষ্ট রাইট করে আর্ন করতে পারেন এজন্য অবশ্য আপনি ফাইবার কিংবা ফ্রিল্যান্সিং এর মধ্যে প্রচুর কাজ পাবেন।
এজন্য আপনাকে লেখার স্পিড বাড়াতে হবে। এবং ইংলিশ বাংলা দুটি ভাষাতে দক্ষ হতে হবে।

এসইও করেঃ আপনার যদি এসইও সম্পর্কে জ্ঞান থেকে থাকে তাহলে আপনি প্রচুর অন পেজ এসইও এর কাজ পাবেন এবং এ থেকে আপনি সাইট ওউনার এর কাছ থেকে আপনি উক্ত সাইটের র‍্যাঙ্কিং করে বেশ ভালো আর্ন করতে পারবেন।
অনলাইনে হাজার হাজার প্রতিষ্ঠাণ আছে যারা তাদের প্রতিষ্ঠান কে গুগলের প্রথম পেজে নিয়ে আসতে হাজার হাজার ডলার খরচ করে যাদের তাদের ওয়েবসাইটের কীওয়ার্ড গুলো গুগলের বা অন্য যে সার্চ ইঞ্জিনের সার্চ লিষ্টের প্রথম দেখায়।

ক্রিয়েটিভ ডিজাইনার হিসাবেঃ এখন ঘরে বসে অনলাইনে আয় গুলোর মধ্যে বর্তমানে সবচেয়ে জনপ্রিয় মাধ্যম হল ক্রিয়েটিভ ডিজাইন তৈরি করা বা ওয়েব ডিজাইন বা লোগো ডিজাইন করা। অনেক প্রতিষ্ঠানই এখন ফ্রিল্যান্সারদের মাধ্যমে তাদের বিভিন্ন পেজেন্ট্রেশন বা লোগোর কাজ করায়। যারা এসব কাজের উপর দক্ষ তারা নিজেদের কে ফ্রিল্যান্সিং বা বড় বড় মার্কেট প্লেসে নিজেদের কে প্রতিষ্ঠিত করে আর্ন করতে পারবেন।

এছাড়াও আপনি চাইলে বিভিন্ন এপ্স এর মাধ্যমে বা গেমস খেলেও টাকা আর্ন করতে পারেন,ঘরে বসে সময় নষ্ট না করে কাজে লেগে থাকুন এতে সফলতা আসবে খুব সহজে।
বর্তমানে প্লে-স্টোর বা সার্চ ইঞ্জিনে এস ধরনের গেমস এপ্স বা ওয়েব সাইট প্রচুর রয়েছে।

আজকের এতো টুকুই,আবার আপনাদের মাঝে নতুন কিছু নিয়ে আসবো,আসলে ঘরে বসে আমি নিজেও বসে নেই ব্লগের মাধ্যমে নিজেকে প্রেজেন্ট করে বা ব্লগ আর্টিকেল লিখে ইনকাম এর করার চেষ্টায় আছি এবং আপনাদের ও আমার নিজের ব্যক্তিগত অভিমত করার জন্যই মূলত আজকের এই পোষ্ট।
ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে বা সোস্যাল সাইটে এতে আপনার দ্বারা অন্যরাও উপকৃত হতে পারে……

Also Read: Easy way to earn money by Writing Articles

Sabyasachi Dewery

Author | Blogger | Digital Marketing Influencer | Tech Researcher At www.sdewery.me

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button