SEO Tips

এসইও শিখতে যে সকল গাইডলাইন দরকার।

আজকের পোষ্টে আমি আপনাদের জানাবো প্রথমবার যারা এসইও করতে চান তারা নিচে দেয়া বর্নিত টিউন টি দেখে খুব ভালো ভাবেই আইডিয়া নিতে পারবেন,তাই এই টিউন টি আপনার জন্য। 

কারন এসইও করার ক্ষেত্রে প্রথম শর্ত হচ্ছে আপনাকে ইংরেজিতে উপর বেশ দক্ষ হতে হবে।

কারন আপনার কাছে প্রশ্ন আসতে পারে যে আপনি কি ধরনের কন্টেন্ট নিয়ে লিখতে চান নাকি শুধু মাত্র এসইও নিয়ে কাজ করবেন, তবে শুধু মাত্র ইংরেজি কেন।

কিন্তু ইংরেজি যেহেতু সার্বজনীন ভাষা তাই গুগলে এর কম্পেটিশন ও সব থেকে বেশি,গুগলে ইংরেজি কন্টেন্ট এ র‍্যাঙ্কিং করা অনেক বেশি কষ্টকর।

এসইও শিখতে যে সকল গাইডলাইন দরকার।

তাই এসইও করতে হলে অবশ্যই আপনাকে প্রথমেই দেখতে হবে আপনার কন্টেন্ট টি ঠিক রয়েছে কিনা খুটিয়ে দেখতে হবে,এর পর ON PAGE CHECK, BLOG COMMENTING, GUEST POST OUT REACH সহ সব জায়গাতেই আপনাকে ইংরেজিতে প্রখর দক্ষ হতে হবে।

আপনি যদি ঠিক ভাবে নাই বুঝতে পারেন যে আপনার কন্টেন্ট লেখা ঠিক না ভুল হয়েছে তাহলে রাইটার কি লিখলো সেটা আপনার কাছে বিচার বিশ্লেষন করতে আপনার কাছে প্রায় অসম্ভব হয়ে যাবে।

এসইও এর সংক্ষিপ্ত বিবরনঃ

SEO বা এসই মানে আপনাকে সার্চ ইঞ্জিনকে(SE) কন্ট্রোল করা শিখতে হবে। 

তবে এই জন্য আপনাকে গুগল এডভান্স Search Term শিখার অন্য কোন বিকল্প নেই। 

তবে গুগল মার্কেটের ৭৫%+ ভাগই (ব্যক্তিগত ভাবে মনে করি) শেয়ার বিলংগস করে থাকে। এরপরের গুরুত্ব পূর্ন সার্চ ইঞ্জিন হল র‍্যাঙ্কিং এ আছে Bing Search Engine। 

সেটাকেও কন্ট্রোল করতে পারা অনেক গুরুত্ব পুর্ণ।তবে এর পাশাপাশি জানার চেষ্টা করতে পারেন যে কিভাবে এসব সার্চ ইঞ্জিন গুলি কাজ করছে।

Also Read: How to do video conferencing with Google Meet


টার্মিনোলজি ডিটেইলসঃ

এসইও টার্মিনোলজি গুলো সম্পর্কে ডিটেইলস জানা টা দরকার। 
আপনি যখন কোন এসইও নিয়ে টিউটোরিয়াল পড়তে যাবেন এবং সেখানে দেখতে পারবেন এসইও এর বিভিন্ন রকমের টার্মস ব্যবহার করা হয়েছে। 

টার্মিনোলজি গুলো সম্পর্কে জানা না থাকলে আপনি কোন ভাবেই পুরা কন্সেপ্ট ক্লিয়ার করতে পারবেন না। তাই সব সময় চেষ্টা করুন কন্সেপ্ট ক্লিয়ার করার জন্য কি ধরনের টার্মিনোলজি গুলা ব্যবহার হয়েছে তা জানার চেষ্টা করুন।

এরপর ধাপে ধাপে নিচে বর্নিত বিষয় বস্তু গুলো ভালো ভাবে আয়ত্ব করার চেষ্টা করুন। এখানে বলে রাখা ভাল যে, প্রতিটা বিষয়ের বেসিক ও এডভান্স নলেজ রাখা সব থেকে বেশি প্রয়োজন।

শুরুতেই গুগলে সার্চ দিতে পারেন beginner’s Guide ( topic) পরে topic name Advance Guide কিওয়ার্ড নিয়ে সার্চ দিন।

১। কিওয়ার্ড রিসার্চঃ ব্লগ বা ওয়েবের এসইওর ক্ষেত্রে কিওয়ার্ড রিসার্চ করা সব থেকে বেশি জরুরী কারন এর উপরেই নির্ভর করে আপনার কি পরিমান ট্রাফিক সাইটে আসছে বা কি পরিমান মানুষ সার্চ ইঞ্জিন গুলো তে এসে এসব নামে সার্চ করে বা সার্চ হয়।

২। কন্টেন্ট স্ট্রাকচার ও কন্টেন রাইটিংঃ কন্টেন্ট রাইটিং এর উপরেও এসইও নির্ভর করে থাকে অনেক টা। তাই প্রায় ৫০০-৭০০ বা ৮০০ এর মধ্যে যুক্তিযুক্ত কন্টেন্ট লিখুন।

৩। বেসিক এইচ টি এম এল, সি এস এসঃ এটি জানা অনেক দরকার আর আপনি জুমলা,পিএসপি,কিংবা পাইথন যে এইচটিএমএলই ব্যবহার করেন না কেন গুগলের কোন আপত্তি নেই তবে আপনার এইসটিএমএল এর সঠিক ব্যবহার জানতে হবে।

৪। টেকনিক্যাল এসইওঃ

  • অনপেজ এসইওঃ অনপেইজ করা জানতে হবে সে জন্য ব্লগ এর কন্টেন্ট লিখার সময়ে বেশ সু-নজর দিতে হবে তাই নিচের কিছু পয়েন্ট খেয়াল করুন,আমি এখানে শর্ট কিছু নোট দিচ্ছি।
  1. মেটা টাইটেলঃ ব্লগের কন্টের লিখার সময়ে আমরা যে নামে ব্লগ টি প্রকার করি সেটাই মূলত মেটা টাইটেল,মেটা টাইটেল দেয়ার ক্ষেত্রে কিওয়ার্ড রিসার্চ করাটা জরুরি কারন মানুষ এর ইন্টাররেষ্টের উপর টাইটেল দিলে সার্চ ইঞ্জিনে আপনার পোষ্ট টী প্রথমে চলে আসতে সাহায্য করে। যেমন- (এসইও শিখতে যে সকল গাইডলাইন দরকার)
  2. মেটা ডিস্ক্রিপশনঃ মেটা ডিস্কিপশন দিন কন্টেন্ট লিখার মধ্যে,মেটা ডিস্কিপশন বলতে কন্টেন্টের মধ্যে বোল্ড অক্ষরে কোটেশন আকারে লিখা। যেমন – (এসইও এর সংক্ষিপ্ত বিবরন)
  3. ইউ আর এল স্ট্রাকচারঃ URL স্ট্রকচার বলতে পোষ্ট এর পার্মালিংক কে বোঝানো হয়েছে,আপনি যখন কোন ব্লগ পাব্লিশ করেন তখন পোষ্টের পার্মালিংক থেকে কাস্টম লিংক ক্রিয়েট করার চেষ্টা করুন এটা এসইও এর ক্ষেত্রে অনেক কাজে আসে গুগল সার্চ এর ক্ষেত্রে। তাই এর দিকে নজর দিতে হবে।
  4. কিওয়ার্ড প্লেসমেন্ট, ডেন্সিটি, টিএফ আইডিএফ
  5. এল এস আই
  6. রিচ মিডিয়া অপ্টিমাইজেশন
  7. ইউজার বিহ্যাবিয়ার এনালাইসিস
  • এবং সব শেষে অফ পেজ এসইও করতে পারলেও অনেক কাজে আসে।

৫ । ইউ আই ও ইউ আই এক্স…

আসলে এখানের প্রতিটা নোটেরই অনেক বড় বিস্তারিত ব্যাখ্যা দেয়া সম্ভব,কিন্তু এই মূহুর্তে সব গুলির ব্যাখ্যা দেই নি আপনাদের কিছু জানার থাকলে অবশ্যই কম্মেন্ট করে জানাতে পারবেন,যত টা পারি উপযোক্ত ভাবে আপনাদের জানাতে চেষ্টা করবো।

বি.দ্রঃ এখানে প্রতিটি সুক্ষ বিষয়কে একটু গুরুত্ব দিন। প্রতিটি বিষয়ে অল্প অল্প জ্ঞান নিয়ে আপনি এগিয়ে থাকা মানে আপনি অনেকটাই দূরে আগানো।

Also Read: Easy way to earn money by Writing Articles

Sabyasachi Dewery

Author | Blogger | Digital Marketing Influencer | Tech Researcher At www.sdewery.me

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button